October 31, 2020, 12:55 am

নোটিশ
ব্রাহ্মণবাড়িয়া নিউজ ২৪ ডটকম এ আপনাদেরকে স্বাগতম:: ব্রাহ্মণবাড়িয়া নিউজ ২৪ ডটকম এ প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন, যোগাযোগ- মোঃ নাজিম উল্লাহ নাজু, সম্পাদক ও প্রকাশক, ব্রাহ্মণবাড়িয়া নিউজ ২৪ ডটকম, কাজীপাড়া, ব্রাহ্মণবাড়িয়া। মোবাইলঃ 01732877149, নির্বাহী সম্পাদক, আরাফাত আহমেদ, মোবাইলঃ 01916608000
সংবাদ শিরোনাম
আশুগঞ্জে একটি রিসোর্ট হতে বিপুল পরিমান বিদেশী মদ ও বিয়ার’সহ ২২ জন আটক বিজয়নগরে গাঁজা’সহ ১ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সাংবাদিক ইউনিয়নের আত্মপ্রকাশ আখাউড়ায় সম্ভাব্য ২ মেয়র প্রার্থীর পোস্টার-ব্যানার ছেঁড়ার অভিযোগ আশুগঞ্জে ফেন্সিডিল’সহ ২ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব আশুগঞ্জে প্রাইভেটকারযোগে গরু চুরি ! ২ টি গরু’সহ গরু চোর চক্রের ২ সদস্য গ্রেফতার আশুগঞ্জে গাঁজা ও ট্রাক’সহ ১ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গাঁজাসহ ১ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব সরাইল চুন্টায় চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীর জয় আশুগঞ্জে গাঁজা ও প্রাইভেটকার’সহ ১ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার
কাউতলীতে ক্লিনিকে প্রসূতিকে সিজারের সময় নবজাতকের পেট কেটে ফেলার অভিযোগ

কাউতলীতে ক্লিনিকে প্রসূতিকে সিজারের সময় নবজাতকের পেট কেটে ফেলার অভিযোগ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরের কাউতলীতে একটি বেসরকারি ক্লিনিকে ফারজানা আক্তার (২২) নামের এক প্রসুতিকে সিজারিয়ান অপারেশন করতে গিয়ে নবজাতকের পেট কেটে ফেলার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

রোববার সকালে জেলা শহরের কাউতলী এলাকার দি আল ফালাহ মেডিকেল সেন্টারে এই ঘটনা ঘটে। ফারজানা আক্তার আখাউড়া উপজেলার সীমান্তবর্তী বাউতলা এলাকার তৌহিদুল ইসলামের স্ত্রী। ঘটনার হাসপাতালের চিকিৎসক-মালিক সহ সবাই পালিয়ে গেছে।

ফারজানা স্বামী তৌহিদুল ইসলাম জানান, আমার স্ত্রী প্রসব বেদনা উঠলে রোববার সকালে তাকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরে নিয়ে আসি। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এক দালালের ফক্করে পরে দি আল ফালাহ মেডিকেল সেন্টারে নিয়ে যাই। সেখানে  আমার স্ত্রীকে সিজারিয়ান করতে সাড়ে ১৬হাজার টাকা চুক্তি করে। এরপর সেখানে মারুফা রহমান নামের একজন চিকিৎসক সিজারিয়ান অপারেশন করা করলে আমার স্ত্রী একটি কন্যা সন্তান জন্ম দেন। কিন্তু নবজাতকের পেটের একপাশে রক্তাক্ত আঘাতের চিহ্ন দেখা যায়। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানালে তারা জানান, নাভি কাটকে গিয়ে কাচির আঘাত লেগেছে।

বিষয়টি জানতে পেরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত ও জেলা সিভিল অফিসের কর্মকর্তারা হাসপাতালে আসেন। তবে তাদের আসার খবর পেয়ে হাসপাতালের মালিকসহ সংশ্লিষ্ট সবাই পালিয়ে যায়।

এই বিষয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার মাহমুদুল হাসান জানান, খবর পেয়ে আমরা হাসপাতালটিতে যাই। হাসপাতালটির কোন লাইসেন্স নেই।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাফফাত আরা সাঈদ বলেন, শিশুটির পেটে ক্ষতের চিহ্ন দেখা গেছে। তবে তেমন গুরুতর নয়। কিন্তু অদক্ষতার কারণে এই ঘটনাটি ঘটেছে।

তিনি আরও বলেন, হাসপাতালটিতে নিয়মিত সিজারিয়ান অপারেশন করা হচ্ছে। রোববার সকালেও দুইটি সিজারিয়ান অপারেশন হয়। এছাড়াও এখানে বিভিন্ন প্রকার প্যাথলজি টেস্ট করা হয়। কিন্তু মেয়াদ উর্ত্তীণ ঔষধ হাসপালের ল্যাবে পাওয়া যায়। হাসপাতালটিকে ৩০হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত হাসপাতালটিকে বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 Copyright @ brahmanbarianews24.com