January 21, 2021, 11:53 am

নোটিশ
ব্রাহ্মণবাড়িয়া নিউজ ২৪ ডটকম এ আপনাদেরকে স্বাগতম:: ব্রাহ্মণবাড়িয়া নিউজ ২৪ ডটকম এ প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন, যোগাযোগ- মোঃ নাজিম উল্লাহ নাজু, সম্পাদক ও প্রকাশক, ব্রাহ্মণবাড়িয়া নিউজ ২৪ ডটকম, কাজীপাড়া, ব্রাহ্মণবাড়িয়া। মোবাইলঃ 01732877149, নির্বাহী সম্পাদক, আরাফাত আহমেদ, মোবাইলঃ 01916608000
সংবাদ শিরোনাম
আখাউড়া পৌরসভা নির্বাচনে ১ মেয়রসহ ৮ জনের মনোনয়ন বাতিল ও ১ জনের স্থগিত  নবীনগরে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে চাচা-ভাতিজার মর্মান্তিক মৃত্যু আখাউড়ায় গৃহকর্মী কিশোরী কে ধর্ষণ, থানায় অভিযোগ দায়ের  ২৮ ফেব্রুয়ারি ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভা নির্বাচন নির্বাচিত হলে আখাউড়া পৌরসভায় উন্নয়নের অগ্রযাত্রা অব্যাহত থাকবে- মেয়র কাজল আখাউড়ার বাসিন্দা নয় এমন ব্যাক্তিকে পৌর বিএনপির আহবায়ক! প্রতিবাদে পদত্যাগের হিড়িক  নাসিরনগরে শিশু ধর্ষণ মামলার প্রতিবেদনে অসংগতি, এসপি-সিভিল সার্জনকে তলব আখাউড়া-আগরতলা নির্মাণাধীন রেলপথে রোলারের ধাক্কায় শিশু নিহত আখাউড়ায় মাটি খুঁড়তেই বের হলো বুলেট! আখাউড়ায় ২ টি বাড়িতে দূর্ধর্ষ ডাকাতির ঘটনার মূল হোতা সহ ৩ ডাকাত গ্রেফতার
শ্যালিকাকে ধর্ষণের পর হত্যায় অভিযুক্ত নাঈম আটক, নাঈমের পিতার আত্মহত্যা

শ্যালিকাকে ধর্ষণের পর হত্যায় অভিযুক্ত নাঈম আটক, নাঈমের পিতার আত্মহত্যা

ব্রাহ্মণবাড়িয়া নিউজঃ শনিবার (২২ জুন) ভোরে সদর উপজেলার অষ্টগ্রাম এলাকায় অভিযান চালিয়ে শ্যালিকাকে ধর্ষণের পর হত্যার ঘটনায় অভিযুক্ত দুলাভাই নাঈম ইসলামকে (২৭) আটক করেছে পুলিশ।

শনিবার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সদর ও বিজয়নগর সার্কেলের অতিরিক্তি পুলিশ সুপার রেজাউল কবির  জানান, নিহত তামান্না আক্তারের মায়ের দেয়া অভিযোগের ভিত্তিতে গোপন সংবাদের মাধ্যমে নাঈমের মামার বাড়ি থেকে তাকে আটক করা হয়।

তিনি আরো জানান, মামলার তদন্ত কার্যক্রম চলছে। ডিএনএ পরীক্ষার পর নাঈমের বিরুদ্ধে চূড়ান্ত অভিযোগ দেওয়া যাবে।

গত বৃহস্পতিবার (২০ জুন) ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার নাঈম ইসলামের বাড়ি থেকে তামান্না আক্তারের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

এদিকে ছেলের অপকর্ম সইতে না পেরে  নাঈমের বাবা বসু মিয়া আজ সকালে আত্মহত্যা করেছেন।

আজ শনিবার সকাল ১০টার দিকে নবীনগর  উপজেলার গোসাইপুর গ্রামে গাছের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় তার মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

নবীনগর থানার পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) রাজু আহমেদ বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ছেলের ধর্ষণের ঘটনায় মামলা হওয়ার ভয়ে বসু মিয়া বাড়ি ছেড়ে গোসাইপুর গ্রামে তার এক আত্মীয়ের বাড়িতে চলে আসেন। ঘটনাটি নিয়ে তিনি হতাশায় ভুগছিলেন।

 

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 Copyright @ brahmanbarianews24.com